অক্সফোর্ডে বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট

ছোট শহর অক্সফোর্ডে বাঙালি পরিবারের সংখ্যা খুবই কম। অবশ্য লন্ডনে বেশ বড় সংখ্যাক বাঙালি বসবাস করে। তাদের বেশিরভাগই বাংলাদেশের সিলেট অঞ্চলের লোক। সাধারণত তারা সিলেটি এবং ইংরেজী ভাষায় কথা বলে। শুদ্ধ বাংলা অনেকের শেখা হয়ে ওঠে না। তবে অক্সফোর্ডের অবস্থাটা ভিন্ন। শিক্ষাকেন্দ্রিক শহর হওয়ায় এখানে ব্যবসা নির্ভর বাঙালিরা বসবাসের জন্য এই শহরকে তেমন একটা বেছে নেয়নি। গুটিকয়েক বাঙালি পরিবার যারা আছে তাদের পেশা বিভিন্ন। তবে কয়েকটি ব্যবসায়ী বাঙালি পরিবারও এখানে আছে।


ব্রিটেনে বাঙালিদের প্রধান ব্যবসা রেস্টুরেন্ট চালানো। বাংলাদেশি ও ভারতীয় খাবারের বিভিন্ন পদ পরিবেশন করা হয় বাঙালি রেস্টুরেন্টগুলোতে। একটা কথা বলে নেওয়া প্রয়োজন ব্রিটেনে বাংলাদেশ থেকে আগত ব্রিটিশ বংশোদ্ভুত ব্যক্তিরা বাঙালি পরিচয়ে পরিচিতি, বাংলাদেশি নয়। যাই হোক, ব্রিটেনে যত ভারতীয় রেস্টুরেন্ট আছে তার একটা উল্লেখযোগ্য অংশ বাঙালিরা চালায়। তাই কোন ভারতীয় রেস্টুরেন্টে গেলেই হয়ত আপনি জানতে পারবেন যে মালিক বাংলাদেশি।

অক্সফোর্ডেও বেশ কয়েকটা বাঙালি রেস্টুরেন্ট আছে। আমি যে কয়টার নাম জানি সেগুলো হল- আজিজ, জী সাহেব, স্পাইস লাউঞ্জ ও স্যাফ্রন। জী সাহেবের খাবার আমার কাছে খুব আধুনিক বা মডার্ণ মনে হয়। অন্যদিকে স্যাফ্রনের খাবার একদম অথেনটিক। এখানে খাবারের স্বাদ বাংলাদেশের রেস্টুরেন্টগুলোর মত। খাবারের মধ্যে আমার সবচেয়ে ভাল লাগে সাতকরা চিকেন। সাতকরা হল লেবুরমত একটা ফল। সেটা দিয়ে মুরগী রান্না করা হয়। এই রকম একটা ওয়েস্টার্ন পদও আমার বেশ প্রিয়। করনেশন চিকেন।

এখানকার বাঙালি রেস্টুরেন্টগুলোর সাথে আমাদের বেশ ভাল একটা সম্পর্ক আছে। ইউনিভার্সিটিতে বাংলাদেশিদের কোন অনুষ্ঠান হলেই আমরা তাদের কাছ থেকে দেশী খাবার অর্ডার করি। তারাও আমাদেরকে ডিসকাউন্টে তাদের খাবার ডেলিভেরী দেয়। আর সময় আমাদের বিদেশি বন্ধুরা সেই খাবার খেয়ে প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়।

মঞ্জিলুর রহমান
সামারটাউন, অক্সফোর্ড

লেখাটি শেয়ার করুন

Share on FacebookTweet on TwitterPlus on Google+


ইমোটিকনইমোটিকন